ই-পেপার

ডিটেকটিভ ডেস্ক

ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ, বাংলাদেশ (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) বলেছেন, আমাদের চার হাজার বছরের ইতিহাস। আমরা পূর্ণাঙ্গ জাতিসত্তা হিসেবে আবির্ভূত হতে পারিনি বিধায় বিশ্বপরিমণ্ডলে নিজেদেরকেও আবির্ভূত করতে পারিনি। বঙ্গবন্ধু তাঁর নাতিদীর্ঘ সময়ে বাঙালি জাতিকে, জাতি হিসেবে গঠন করে তাঁর সত্তার স্বীকৃতির ব্যবস্থা করেছেন, সেটা বিস্ময়কর।

৮ আগস্ট ২০২২ খ্রি. বিকেলে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটরিয়াম রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর আয়োজিত আলোচনা সভা ও কুইজ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে আইজিপি এসব কথা বলেন। ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক ছিলেন অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠানে র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, এসবি প্রধান মনিরুল ইসলাম এবং বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া ৫১টি ইউনিট ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিল। অনুষ্ঠানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে একটি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন এবং ‘দিশারী’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

আইজিপি বলেন, যাঁরা অবয়বে বাঙালি জাতিসত্তার অংশ কিন্তু প্রকৃতপক্ষে নয়, তাঁরা ভেতর থেকে ঘুণ পোকার মতো আমাদের খেয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছে। এই চ্যালেঞ্জ যেমন আগেও ছিল, এখনো আছে। এই চ্যালেঞ্জের কারণে আমরা বঙ্গবন্ধুকে হারিয়েছি, আমাদের যে মুক্তির কান্ডারি, তাঁদেরকেও হারিয়েছি। আমাদের সবাইকে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। এই জাতিকেই সোচ্চার হতে হবে, সতর্ক হতে হবে। আমাদের প্রহরীর মতো দায়িত্ব পালন করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী এবং বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকীতে এটাই হোক আমাদের প্রতিজ্ঞা।

মুখ্য আলোচক অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের বটবৃক্ষ, তাঁর ছায়ায়, প্রচ্ছায়ায় আমাদের অস্তিত্ব নির্মাণ করেছি, অস্তিত্ব ধারণ করব যত দিন বাংলাদেশ টিকে থাকবে তত দিন। বঙ্গবন্ধু আমাদের বটবৃক্ষ আর বটবৃক্ষের ছায়াবৃক্ষ ছিলেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব।

তিনি বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে হত্যা করার দৃষ্টান্ত রহিত নয়, কিন্তু সপরিবারে স্বজন-পরিজনসহ একই দিনে আড়াই ঘণ্টার মধ্যে ১৯ জনকে হত্যা করার দৃষ্টান্ত ইতিহাসে আর নেই। এমনকি ১০ বছরের শিশু রাসেলও বাদ যায়নি। বঙ্গবন্ধুর ৫৫ বছর ৪ মাস ২৯ দিনের জীবন, তাঁর মধ্যে তিনি শুধু বাঙালিকে দেওয়ার চেষ্টাই করেছেন, কোনো কিছু নেওয়ার চেষ্টা করেননি, আমরা তাঁকে কিছুই দিতে পারিনি। বাংলাদেশ পুলিশ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, কিশোরদের কুইজ প্রতিযোগিতা ও বড়দের রচনা প্রতিযোগিতা। ২৫ জুলাই বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। এ ছাড়া ২৯ জুলাই পুলিশ সদস্যরা এই কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন।

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x