ই-পেপার

SITE UNDER CONSTRUCTION
বাংলাদেশ পুলিশের মুখপত্র
অব্যাহত প্রকাশনার ৬৩ বছর

পুলিশের সাধারণ ডায়েরিকে সংক্ষেপে জিডি বলা হয়। প্রত্যাহিক জীবনে নানা কাজে জিডি করার প্রয়োজন হয়। জিডি পুলিশ প্রদত্ত বিনামূল্যের একটি আইনি সেবা। বাংলাদেশের যেকোনো নাগরিক থানা থেকে প্রয়োজন অনুযায়ী এ সেবা গ্রহণ করতে পারেন।

জিডি

কোনো ঘটনায় আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণের প্রাথমিক এবং সাধারণ একটি বিষয় হচ্ছে জেনারেল ডায়েরি বা জিডি। বিশেষ করে কোনো কিছু হারিয়ে গেলে, আইনগত রেকর্ড সংরক্ষণ বা পুলিশে প্রাথমিক তথ্য জানানোর জন্য জিডি করা হয়। অনেক সময় কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ ও মামলা না করে জিডি আকারে করা হয়ে থাকে।

জিডি যেখানে করবেন

মনে রাখবেন, যে থানার মধ্যে ঘটনা ঘটেছে, জিডি অবশ্যই ওই থানায় করতে হবে। সহজ করে বললে, ঘটনার স্থানীয় থানা। ধরুন, আপনার আইডি কার্ড রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় হারিয়ে গেছে। কিন্তু আপনার বাসা মোহাম্মদপুর। যেহেতু আপনার আইডি কার্ড হারানোর ঘটনাস্থল মতিঝিল, তাই আপনাকে মতিঝিল থানায় জিডি করতে হবে।

জিডি যেভাবে লিখবেন

সাদা কাগজে ঘটনাস্থলের স্থানীয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবর একটি দরখস্ত লিখতে হয়। আমরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে যেমন আবেদন লিখি, ঠিক তেমনই। অবশ্যই জিডির সুনির্দিষ্ট একটি বিষয় থাকতে হবে। ঘটনার ক্ষেত্রে স্থান, সময়, তারিখ, দিন, মাস, বছর ইত্যাদি থাকতে হবে। হারিয়ে যাওয়া জিনিসপত্রের ক্ষেত্রে যা হারিয়ে গেছে, সেসব জিনিসের বিস্তারিত বর্ণনা থাকতে হবে। কারও বিরুদ্ধে অভিযোগের জিডির ক্ষেত্রে সম্ভব হলে অভিযুক্ত ব্যক্তির পূর্ণ নাম-ঠিকানা, ঘটনার সাক্ষীদের নাম-ঠিকানা জানা থাকলে দেওয়া যেতে পারে। এনআইডি, আইডি কার্ড, দলিল ইত্যাদি হারিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে একটা ফটোকপি থাকলে তা জিডিতে সংযুক্ত করে দেওয়া ভালো। তবে অবশ্যই যিনি জিডি করছেন, তাঁর নাম, ফোন নম্বর ও পূর্ণ ঠিকানা উল্লেখ করা ভালো। উল্লেখ্য, থানায় ছাপানো জিডি ফরম পাওয়া যায়। ডিউটি অফিসারকে বললেই তিনি তা সরবরাহ করবেন।

জিডি করতে থানায় যার সাথে যোগাযোগ করবেন

আপনার লেখা জিডি আবেদনের দুই কপিসহ স্থানীয় থানায় গিয়ে ডিউটি অফিসারের কাছে যাবেন। ডিউটি অফিসার আপনার জিডির বিষয়টি জিডি বইতে উল্লেখ করবেন। এরপর জিডি কপির একটিতে জিডি নম্বর ও সিল দিয়ে আপনাকে ফেরত দেবেন। সংযুক্ত ডকুমেন্টসহ অন্য কপি আপনাকে ফেরত দেবেন।

যিনি লিখতে জানেন না, তাঁর ক্ষেত্রে করণীয়

যদি কোনো ব্যক্তি জিডির আবেদন লিখতে নাও পারেন, তিনিও জিডি করতে পারবেন। এ জন্য তাঁকে স্থানীয় থানার ডিউটি অফিসারের কাছে গিয়ে যে বিষয়ে জিডি করতে চান, সে বিষয় জানাবেন। ডিউটি অফিসার তাঁর কথামতো জিডি নোট করবেন এবং তাঁকে পড়ে শোনাবেন। এ ক্ষেত্রে জিডি করতে তথ্য প্রদানকারী ব্যক্তির পূর্ণ নাম-ঠিকানা দিতে হবে। তবে মনে রাখতে হবে, যেসব বিষয়ে মামলা করার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে, সেসব ক্ষেত্রে জিডি না করে সরাসরি মামলা করাই উত্তম।

ডিটেকটিভ ডেস্ক

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

1 Comment

Mizanur Rahman · August 6, 2021 at 10:27 pm

Dhonnubhad……..ami Shompadoker Dhisty akorshun korbo apnara Jodi Basic subject golu neye koyekta probondhu leken tahole amra oporkito hobo…..

Leave a Reply

Avatar placeholder

Your email address will not be published. Required fields are marked *