ই-পেপার

SITE UNDER CONSTRUCTION
বাংলাদেশ পুলিশের মুখপত্র
অব্যাহত প্রকাশনার ৬৩ বছর

পুলিশের অধস্তন কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণের জন্য ২০২০ সাল হতে নতুন পদ্ধতিতে পুলিশ বিভাগীয় পদোন্নতি পরীক্ষা চালু হয়েছে।

ডিটেকটিভ পত্রিকায় প্রতি সংখ্যায় বিভাগীয় পদোন্নতি সহায়ক হিসেবে লিখিত ও MCQ অনুশীলনী প্রকাশিত হচ্ছে। লিখিত এবং MCQ অনুশীলনের মাধ্যমে পরীক্ষার্থীবৃন্দ উপকৃত হবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি। এ সংখ্যায় প্রকাশিত হলো মাইনর এ্যাক্টস থেকে প্রশ্নোত্তর।

বহুনির্বাচনি (এমসিকিউ) পরীক্ষার

 গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও প্রশ্নোত্তর

মাইনর এ্যাক্টস

(উত্তর শেষ পাতায়)

০১ । অপহরণ করার উদ্দেশ্যে একটি শিশুকে ধাওয়া করে ভীত শিশুটি উপায়ন্তর না দেখিয়ে পুকুরে ঝাপ দিয়ে মৃত্যুবরণ করে এতে অপহরণকারীর শাস্তি কি হবে?

  (ক) দ-বিধি আইন ৩০২ ধারা,মৃত্যুদণ্ড যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত হবে

   এবং অর্থদণ্ডেও দণ্ডনীয় হবে

  (খ) দ-বিধি আইন ৩০৪ ধারা

  (গ) নাঃশিঃনিঃদঃ আইন ৭ ধারা         (ঘ) কোনটি নয়।

০২। কোন অপরাধের কারণে একজনের অপরাধে তিন জনের শাস্তি হয়?

  (ক) নাঃশিঃনিঃদঃআইন ৯(৪)ধারা   (খ)নাঃশিঃনিঃদঃআইন ৯(৫) ধারা

  (গ) নাঃশিঃনিঃদঃআইন ৯(২)ধারা     (ঘ)নাঃশিঃনিঃদঃআইন ৯(৩)ধারা

০৩। নাঃশিঃনিঃদঃ আইনে কোন পদের অফিসারের একজনের অপরাধে তিন জনের শাস্তি হয়?

  (ক) থানার ওসি                     (খ) ডিউটি অফিসার

  (গ) কনস্টেবল                      (ঘ) ক,খ,ও গ সবগুলি

০৪। ‘ক’ ‘খ’ নামক একজন মহিলাকে সম্ভ্রমহানির চেষ্টা করে। ফলে ‘খ’ অপমানবোধ করায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এক্ষেত্রে ‘ক’এর কি অপরাধ?

  (ক) নাঃশিঃনিঃদঃআইন ৯-ক ধারা   (খ) নাঃশিঃনিঃদঃআইন ৯ ধারা

  (গ) নাঃশিঃনিঃদঃআইন ৯-খ ধারা   (ঘ) নাঃশিঃনিঃদঃআইন  ৯-গ ধারা

০৫। শিশু আইন অনুযায়ী কত বৎসর বয়স পর্যন্ত সকল ব্যক্তি শিশু হিসাবে গণ্য হবে।    

  (ক)  ১৬ বৎসর বয়স পর্যন্ত                          (খ) ১৪ বৎসর বয়স পর্যন্ত

  (গ) অনূর্ধ্ব ১৮ বৎসর বয়স পর্যন্ত    (ঘ) ১৩ বৎসর বয়স পর্যন্ত

০৬। শিশুবিষয়ক ডেস্কে কোন পদের অফিসারকে অগ্রাধিকার প্রদান করা হয়েছে?

  (ক) সাব ইন্সপেক্টর               (খ)  মহিলা সাব ইন্সপেক্টর

  (গ) এএসআই                       (ঘ) কনস্টেবল

০৭। শিশুর বিচার কোন আদালতে অনুষ্ঠিত হবে।

  (ক) যে কোনো আদালতে     (খ) জেলা যে কোনো আদালতে

  (গ)  ক ও খ    (ঘ) শিশু আদালত নামে এক বা একাধিক আদালতে

০৮। শিশু আদালতে বিচার চলাকালীন সময় কোন ধরনের পোশাক পরিধান করতে পারবেন না।

  (ক) পেশাগত দাপ্তরিক ইউনিফরম             (খ)  যেকোনো পোশাক

  (গ) ক ও খ                             (ঘ) কোনোটিই নয়

০৯। মানব পাচার আইনে সার্ভিচিউট এর অর্থ বলতে কি বুঝায়?

  (ক) কোনো কাজ করতে বাধ্য

  (খ) অন্য কোনো ব্যক্তির প্ররোচানায় কাজ করা

  (গ) নিজের ইচ্ছায় কোনো কাজ করা         (ঘ) কোনোটিই নয়

১০। মানব পাচার আইনের অতিরাষ্ট্রিক প্রয়োগ কত ধারা?

  (ক) ৪ ধারা                 (খ) ৫ ধারা

  (গ) ৬ ধারা                 (ঘ) ৭ ধারা

১১। অতিরাষ্ট্রিক বলতে কি বুঝারয়?

  (ক) বাংলাদেশের বাহির হতে বাংলাদেশের ভিতরে অপরাধ অথবা

   বাংলাদেশের ভিতর হতে বাংলাদেশের বাহিরে সংঘটিত কোনো অপরাধ

  (খ) বাংলাদেশের যে কোন জায়গায়

  (গ) ক ও খ                 (ঘ) কোনোটিই নয়

১২। সংঘবদ্ধ মানব পাচার অপরাধের চক্রের শাস্তি মানব পাচার আইন কত ধারা?

  (ক)  ৬ ধারা              (খ) ৭ ধারা

  (গ) ৮ ধারা                 (ঘ) ৯ ধারা

১৩। পর্ণোগ্রাফি উৎপাদন, সংরক্ষণ, বাজারজাতকরণ, বহন, সরবরাহ, ক্রয়, বিক্রয়, ধারণ বা প্রদর্শন করা যাবে না, পর্ণোগ্রাফি আইন কত ধারা।

  (ক) ৩ ধারা                (খ) ৪ ধারা

  (গ) ৫ ধারা                 (ঘ) ৬ ধারা

১৪। বৈধ লাইসেন্স ছাড়া কোনো অস্ত্রশস্ত্র গোলাবারুদ বা সামরিক সরঞ্জাম, রূপান্তর বা বিক্রয় করতে পারবে না, অস্ত্র আইন কত ধারা।

  (ক) ৩ ধারা                (খ) ৪ ধারা

  (গ) ৫ ধারা                 (ঘ) ৬ ধারা

১৫। ব্যক্তিগত প্রয়োজনে অস্ত্রশস্ত্র ও গোলাবারুদ আমদানি ও রফতানি করতে পারবেন, অস্ত্র আইন কত ধারা।

  (ক) ৩ ধারা                (খ) ৪ ধারা

  (গ) ৫ ধারা                 (ঘ) ৬ ধারা

১৬। তল্লাশি ঘাঁটি স্থাপনের ক্ষমতা অস্ত্র আইন কত ধারা?

  (ক) ১১ ধারা               (খ) ১২ ধারা

  (গ) ১৩ ধারা               (ঘ) ১৪ ধারা

১৭। সড়ক পরিবহণ আইনে অপেশাদার এবং পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সের ক্ষেত্রে অন্যূনতম কত বৎসর।

  (ক) অপেশাদার অন্যূন ১৬ বৎসর এবং পেশাদার অন্যূন ২০ বৎসর           (খ) অপেশাদার অন্যূন ১৭ বৎসর এবং পেশাদার অন্যূন ২০ বৎসর 

  (গ) অপেশাদার অন্যূন ১৮ বৎসর এবং পেশাদার অন্যূন ২১ বৎসর            (ঘ) অপেশাদার অন্যূন ১৫ বৎসর এবং পেশাদার অন্যূন ১৯ বৎসর

১৮। ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত মটরযান চালানো যাবে না সড়ক পরিবহণ কত ধারা।

  (ক) ৪ ধারা                 (খ) ৫ ধারা

  (গ) ৬ ধারা                 (ঘ) ৭ ধারা

১৯। শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান সড়ক পারিবহণ আইন কত ধারা।

  (ক) ৪ ধারা                 (খ) ৫ ধারা

  (গ) ৬ ধারা                 (ঘ) ৭ ধারা

২০। বিদেশি নাগরিকের  ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান সড়ক পরিবহণ আইন কত ধারা।

  (ক) ৯ ধারা                (খ) ১০ ধারা

  (গ) ১১ ধারা                (ঘ) ১২ ধারা

২১। উৎপাদিত প্রক্রিয়াজাত এবং আমদানিকৃত মাদকদ্রব্যের মোড়ক ও লেবেলের উপর উহার অপব্যবহারের বিপদ সম্পর্কে  সতর্কবাণী স্পষ্ট অক্ষরে মুদ্রণ  অথবা ছাপাঙ্কন করতে হবে, মাদকদ্রব্য আইন কত ধারা।

  (ক) ৯ (১) ধারা                      (খ) ৯(২) ধারা

  (গ) ৯(৩) ধারা                        (ঘ) ৯(৪) ধারা

২২। মাদকদ্রব্য আইনে কোন শিশু মাদকদ্রব্য অপরাধ সংঘটনের অভিযোগে অভিযুক্ত হলে তার কোন আইনে বিচার হবে।

  (ক) মাদকদ্রব্য আইনে

(খ) শিশু আইন ২০১৩ বিধানাবলি প্রযোজ্য হবে

  (গ) অন্য কোনো আইনে      (ঘ) কোনোটিই নয়

২৩। কোন পুলিশ অফিসার যদি বেআইনিভাবে অথবা হয়রানিমূলক তল্লাশি করে তাহলে তার মাদকদ্রব্য আইন কত ধারায় শাস্তি হবে।

  (ক) ৩৭ ধারা              (খ)  ৩৮ ধারা 

  (গ) ৩৯ ধারা             (ঘ) ৪০ ধারা

২৪। মাদকাসক্ত ব্যক্তি শনাক্ত করার প্রয়োজন হলে নির্ধারিত পদ্ধতিতে ডোপ টেস্ট করা যাবে, মাদকদ্রব্য আইন কত ধারা।

  (ক) ২৪(৪)ধারা                     (খ) ২৬ ধারা

  (গ) ২৭ ধারা              (ঘ) ২৭ ধারা

২৫। ডিজিটাল নিরাপত্তার ক্ষেত্রে হুমকি সৃষ্টি করলে উক্ত তথ্য উপাত্ত অপসারণ বা ক্ষেত্রমত ব্লক করার ক্ষমতা, ডিজিটাল আইন কত ধারা।

  (ক) ৬ ধারা                (খ) ৭ ধারা

  (গ)  ৮ ধারা                (ঘ) ৯ ধারা

২৬। মুক্তিযুদ্ধ,মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, জাতির পিতা, জাতীয় সংগীত বা জাতীয় পতাকার বিরুদ্ধে কোনো প্রকার প্রপাগান্ড বা প্রচারণার শাস্তি, ডিজিটাল আইন কত ধারা।

  (ক) ২১ ধারা               (খ) ২২ ধারা

  (গ) ২৩ ধারা              (ঘ) ২৪ ধারা

২৭। পরিচয় প্রতারণা বা ছদ্মবেশ ধারণ করে যদি কোন ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে বা জ্ঞাতসারে কোনো কম্পিউটার, কম্পিউটার প্রোগ্রাম, ডিজিটাল সিস্টেম বা ডিজিটাল নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে তাহলে তার ডিজিটাল আইন কত ধারায় শাস্তি হবে।

  (ক) ২১ ধারা               (খ) ২২ ধারা 

  (গ) ২৩ ধারা              (ঘ) ২৪ ধারা

২৮। যৌতুক আইনের উদ্দেশ্য পূরণকল্পে, যৌতুক প্রদান বা গ্রহণ সংক্রান্ত কোনো চুক্তি হলে সেই চুক্তি হবে-

  (ক) চুক্তি গ্রহণযোগ্য হবে     (খ) চুক্তি অনুযায়ী আদান প্রদান হবে

  (গ) যৌতুকের চুক্তি ফলবিহীন হবে (ঘ) কোনোটিই হবে না

২৯। প্রকাশ্য জুয়া আইন জুয়া খেললে বা না খেললে জুয়ার স্থলে উপস্থিত থাকলে তাকে কি হিসাবে ধরা যেতে পারে। 

  (ক) জুয়া খেলেছে বলে গণ্য হবে       (খ) শুধু দেখেছে বলে গণ্য হবে

  (গ) জুয়া খেলে নাই বলে গণ্য হবে     (ঘ) খ ও গ হবে

৩০। বাল্যবিবাহের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ ও নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গের শাস্তি, বাল্যবিবাহ আইন কত ধারা।

  (ক) ৪ ধারা                 (খ) ৫ ধারা

  (গ) ৬ ধারা                 (ঘ) ৭ ধারা

অনুশীলনমূলক প্রশ্নোত্তর

০১। প্রশ্নঃ নারীকে আত্মহত্যার প্ররোচনা ও নারীকে যৌনপীড়নের শাস্তি আলোচনা করুন।

০১ প্রশ্নের উত্তরঃ

নারীর আত্মহত্যার প্ররোচনা শাস্তিঃ

            কোনো নারীর সম্মতি ছাড়া বা ইচ্ছার বিরুদ্ধে কোনো ব্যক্তির ইচ্ছাকৃত কোনো কার্য দ্বারা সম্ভ্রমহানি হবার প্রত্যক্ষ কারণে কোনো নারী আত্মহত্যা করলে উক্ত ব্যক্তি নারীকে অনুরূপ কার্যদ্বারা আত্মহত্যা করতে প্ররোচিত করবার অপরাধে অপরাধী হবেন এবং উক্ত অপরাধের জন্য তিনি অনধিক ১০ বছর অন্যূন ৫ বছর কারাদন্ডে দন্ডনীয় হবেন এবং অতিরিক্ত অর্থদণ্ডে দণ্ডনীয় হবেন।

        নাঃশিঃনিঃ দমন ও (সংশোধনী) আইন ২০০৩ এর ৯- ক ধারা।

যৌনপীড়নের শাস্তি ও শ্লীলতাহানির শাস্তিঃ

            যদি কোনো ব্যক্তি অবৈধভাবে তার যৌন কামনা চরিতার্থ করবার উদ্দেশ্যে তার শরীরের যে কোনো অঙ্গ বা বস্তু দ্বারা কোনো নারী বা শিশুর যৌনাঙ্গ বা অন্য কোনো অঙ্গ স্পর্শ করেন বা শ্লীলতাহানি করেন তাহলে যৌনপীড়নের জন্য অনধিক ১০ বছর অন্যূন ৩ বছর কারাদণ্ডে ও অতিরিক্ত অর্থদণ্ডে দণ্ডনীয় হবেন।

নাঃশিঃনিঃ দমন ও (সংশোধনী) আইন ২০০৩ এর ১০ ধারা।

০২। প্রশ্নঃ শিশু বলতে কি বুঝেন? গ্রেফতারকৃত শিশুর প্রতি আপনার করণীয় ও বর্জনীয় কি আলোচনা করুন।

০২ নং প্রশ্নের উত্তরঃ

শিশু (Children)

            ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত সকল মানব সন্তান শিশু হিসেবে গণ্য। বাংলাদেশ মোট জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি হচ্ছে শিশু। শিশুরা দেশের Silent Majority তথা সংখ্যাগরিষ্ঠ নীরব জনগোষ্ঠী। এক কথায় ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত সকল ব্যক্তিকে শিশু বলে।

শিশু আইন ২০১৩ এর ৪ ধারা।

            বিদ্যমান অন্য কোনো আইনে ভিন্নতা যা কিছুই থাকুক না কেন, এই আইনের উদ্দেশ্য পূরণকল্পে, অনূর্ধ্ব ১৮(আঠারো) বৎসর বয়স পর্যন্ত সকল ব্যক্তি শিশু হিসেবে গণ্য হবে।

গ্রেফতারকৃত শিশুর প্রতি করণীয়ঃ

১. শিশু গ্রেফতার হলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তার পিতা-মাতা বা অভিভাবক কে সংবাদ দিবেন।

শিশু আইন ২০১৩ এর ১৪ ধারা।

২. শিশু আটক হলে কোর্টে সোপর্দ করলে তার পরিচয় ও পারিবারিক ইতিহাস প্রবেশন অফিসারকে জানাতে হবে।

শিশু আইন ২০১৩ এর ১৪ (খ) ধারা।

৩. শিশু গ্রেফতার হলে উপযুক্ত জামিনদার পাওয়া গেলে জামিনে মুক্তি দিতে হবে।

শিশু আইন ৪৭, ৫২ ধারা।

৪. শিশু গ্রেফতার হলে তার সঙ্গে অভিভাবক সুলভ আচরণ করতে হবে। জামিন দেয়া সম্ভব না হলে নিরাপদ হেফাজতে রাখতে হবে।

শিশু আইন ২০১৩ এর ১৪ ধারা।

৫. শিশু গ্রেফতার হলে তাকে যথাসময়ে খাদ্য সরবরাহ করতে হবে।

শিশু আইন ২০১৩ এর ১৪ ধারা।

পিআরবি ৩৩৩ বিধি।

৬. শিশু অসুস্থ হলে তাকে চিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

শিশু আইন ২০১৩ এর ১৪-খ(৪) ধারা।

পিআরবি ৩২১ বিধি।

৭. শিশু ও প্রাপ্তবয়স্ক অপরাধীর একত্রে চার্জশিট প্রদান নিষিদ্ধ।

শিশু আইন ১৫ ধারা।

গ্রেফতারকৃত শিশুর প্রতি বর্জনীয়ঃ

১. শিশুকে অহেতুক আটক রাখা যাবে না।

২. শিশুকে আসামি বলা যাবে না।

৩. শিশুকে নির্যাতন করা যাবে না।

৪. শিশুকে হয়রানি করা যাবে না।

৫. গ্রেফতারকৃত শিশুর ছবি পত্রিকায় প্রকাশ করার উপর বিধি নিষেধ আছে।

৬. শিশু যতই বড় অপরাধ করুক না কেন তাকে মৃত্যুদ- বা যাবজ্জীবন দেওয়া যাবে না।

৭. শিশুর সাথে খারাপ আচারণ করা যাবে না।

৮. শিশু গ্রেফতার হলে বয়স্ক আসামিদের সাথে একত্রে রাখা যাবে না।

শিশু আইন ২০১৩ এর ১৪ ধারা।

৯. শিশু ও প্রাপ্ত বয়স্ক অপরাধীর একত্রে চার্জশিট প্রদান করা যাবে না।

শিশু আইন ১৫ ধারা।

০৩। প্রশ্নঃ কোনো আইনে কত ধারা মোতাবেক সন্তানের অপরাধের জন্য পিতা মাতা বা অভিভাবকের শাস্তি ভোগ করতে হয়? আলোচনা করুন।

০৩ নং প্রশ্নের উত্তরঃ

            ১৮৯০ সালের রেলওয়ে আইনের ১৩০ ধারানুযায়ী বার বছরের কম বয়স্ক কোনো নাবালক যদি অত্র আইনের ১২৬, ১২৭, ১২৮ ও ১২৯ ধারা মতে নি¤œলিখিত অপরাধ করে তখন তার পিতা মাতা বা অভিভাবকের নিকট থেকে আদালত কোনো নিদিষ্ট সময়ের মধ্যে নাবালকের পরবর্তী সৎ স্বভাবের জন্য বন্ড আদায় করতে পারেন। বন্ড না দিলে উক্ত নাবালক সন্তানের  মাতা পিতা বা অভিভাবকের ৫০ টাকা অর্থদ- হবে।

রেলওয়ে আইনে ১২৬ ধারা মতে যদি কোনো নাবালক সন্তান ট্রেন লাইনের উপর কাঠ, পাথর বা অন্য কোনো দ্রব্য রাখে যা দ্বারা ট্রেনের ক্ষতি বা ট্রেন যাত্রীর জীবন বিপন্ন হতে পারে।

রেলওয়ে আইনে ১২৬ ধারা।

রেলওয়ে আইন ১২৭ ধারা মোতাবেক ট্রেন যাত্রীর উপর যদি ইট, পাথর, কাঠ বা এমন কিছু নিক্ষেপ করে যাতে ট্রেনযাত্রীর নিরাপত্তার ব্যাঘাত ঘটতে পারে।

রেলওয়ে আইনে ১২৭ ধারা।

রেলওয়ে আইনে ১২৮ ধারা মোতাবেক যদি এমন কোনো কাজ করে যার ফলে ট্রেন যাত্রীর জীবন বিপন্ন হয় বা ট্রেন চলাচলে বাঁধা সৃষ্টি হয়।

রেলওয়ে আইনে ১২৮ ধারা।

রেলওয়ে আইনে ১২৯ ধারা মোতাবেক যদি বিপদজনক বেপরোয়া বা অবহেলা স্বরূপ কোনো কাজ করে যার ফলে ট্রেনযাত্রীর জীবন বিপন্ন হতে পারে।

রেলওয়ে আইনে ১২৯ ধারা।

উপযুক্ত অপরাধগুলো কোনো নাবালক কর্তৃক সংঘটিত হলেও উক্ত নাবালকের পিতা মাতা বা অভিভাবককে শাস্তি ভোগ করতে হবে।

রেলওয়ে আইনে ১৩০ ধারা।

    লেখক : সাব-ইন্সপেক্টর অব পুলিশ

    সংরক্ষণ অফিসার পরিবহন বিভাগ, ডিএমপি, ঢাকা।

-উত্তর-

১। উত্তর: (ক) ২। উত্তর: (খ)  ৩। উত্তর: (ঘ)  ৪। উত্তর: (ক)  ৫। উত্তর: (গ) ৬। উত্তর: (খ) ৭। উত্তর: (ঘ)  ৮। উত্তর: (ক)  ৯। উত্তর: (গ)  ১০। উত্তর: (খ)  ১১। উত্তর: (ক) ১২। উত্তর: (খ)  ১৩। উত্তর: (খ)  ১৪। উত্তর: (গ) ১৫। উত্তর: (ঘ) ১৬। উত্তর: (ক)  ১৭। উত্তর: (গ)  ১৮। উত্তর: (ক)  ১৯। উত্তর: (ঘ)  ২০। উত্তর: (ক)  ২১। উত্তর: (ঘ)  ২২। উত্তর: (খ)  ২৩। উত্তর: (গ)  ২৪। উত্তর: (ক)  ২৫। উত্তর: (গ)  ২৬। উত্তর: (ক)  ২৭। উত্তর: (ঘ)  ২৮। উত্তর: (গ)  ২৯। উত্তর: (ক)  ৩০। উত্তর:  (খ)

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

0 Comments

Leave a Reply

Avatar placeholder

Your email address will not be published. Required fields are marked *