ই-পেপার

SITE UNDER CONSTRUCTION
বাংলাদেশ পুলিশের মুখপত্র
অব্যাহত প্রকাশনার ৬৩ বছর

ডিটেকটিভ ডেস্ক

ল্যাটিন ‘সেপ্টেম’ মানে সাত। রোমান ক্যালেন্ডার অনুযায়ী সেপ্টেম্বর ছিল সপ্তম মাস। খ্রিষ্টপূর্ব ’৪৫ সালে যখন জুলিয়াস সিজার তার নাম অনুসারে জুলিয়ান ক্যালেন্ডার শুরু করলেন, সেখানে ক্রম অনুসারে প্রথম ছয়টা মাস একই থেকে গেল। কিন্তু নতুন দুটো মাস জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি অতিরিক্ত যোগ হওয়ায় সেপ্টেম্বর হয়ে গেল নবম মাস।

বাংলাদেশ

মহান শিক্ষা দিবস : ১৭ সেপ্টেম্বর; তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তান সরকারের গণবিরোধী, শিক্ষা-সংকোচনমূলক শিক্ষানীতি চাপিয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে একটি গণমুখী শিক্ষানীতি চালুর দাবিতে ১৯৬২ খ্রিস্টাব্দের এই দিনে ছাত্র-জনতার ব্যাপক গণ আন্দোলন শুরু হয়। এই আন্দোলন দমাতে ঢাকার হাইকোর্ট মোড়ে পুলিশ গুলি চালায়। গণহত্যার স্মরণে দিবসটি পালিত হয়।

কৃষ্ণপুর গণহত্যা দিবস : ১৮ সেপ্টেম্বর; ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দে মুক্তিযুদ্ধের সময় এই দিনে হবিগঞ্জের কৃষ্ণপুরে হিন্দু ধর্মালম্বীদের ১২৭ জন পুরুষকে নির্মমভাবে হত্যা করে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। এছাড়া আশপাশের এলাকাগুলোতে হামলা চালিয়ে আরো শতাধিক পুরুষকে হত্যা করে তারা। এই হত্যাকান্ডের স্মরণে দিবসটি পলিত হয়ে থাকে।

প্রীতিলতার আত্মাহুতি দিবস : ২৩ সেপ্টেম্বর; ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের নেত্রী প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার ১৯৩২ খ্রিস্টাব্দের এই দিনে দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আত্মহুতি দেন। তিনি ১৯৩০ খ্রিস্টাব্দে মাস্টারদা সূর্যসেনের সংস্পর্শে এসে সশস্ত্র আন্দোলনে সম্পৃক্ত হোন।

মাহমদপুর গণহত্যা দিবস :  ২৯ সেপ্টেম্বর; গোপালপুর উপজেলায় মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যার স্মরণে দিবসটি পালিত হয়।

বৈশ্বিক

সাক্ষরতা দিবস : ৮ সেপ্টেম্বর; ১৯৬৬ সালের ২৬ অক্টোবর ইউনেস্কোর সাধারণ সম্মেলনের ১৪তম অধিবেশনে ইউনেস্কো ৮ সেপ্টেম্বর দিনটিকে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। ১৯৬৭ সালে প্রথমবারের মতো দিবসটি উদযাপিত হয়। এ দিবস উদযাপনের লক্ষ্য ব্যক্তি, সম্প্রদায় এবং সমাজের কাছে সাক্ষরতার গুরুত্ব তুলে ধরা।

বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস : ৮ই সেপ্টেম্বর; ১৯৯৬ সালে ওয়ার্ল্ড কনফেডারেশন ফর ফিজিক্যাল থেরাপির উদ্যোগে  যেসব মানুষ শারীরিকভাবে  অক্ষম, তাদের স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার লক্ষে সচেতনতার জন্য বিশ্বব্যাপী ফিজিওথেরাপিস্টগণ এই দিনটি পালন করে থাকেন।

গণতন্ত্র দিবস : ১৫ সেপ্টেম্বর; ২০০৭ সাল থেকে সদস্যভুক্ত দেশগুলোতে গণতন্ত্র সম্পর্কে আগ্রহ সৃষ্টি এবং গণতন্ত্র চর্চাকে উৎসাহিত করার জন্য প্রচলিত একটি বিশেষ দিন, যা প্রতি বছর ‘১৫ সেপ্টেম্বর’ জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস হিসেবে পালিত হয়ে থাকে।

ওজনস্তর রক্ষা দিবস : ১৬ সেপ্টেম্বর; প্রতি বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর ওজোনস্তর সুরক্ষা দিবস বা বিশ্ব ওজোন দিবস হিসেবে দিনটি আন্তর্জাতিকভাবে পালিত হয়ে থাকে। ওজোন স্তরের ক্ষয় ও এর ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে বিশ্বব্যাপী গণসচেতনতা তৈরিতে দিবসটি পালন করা হয়। ১৯৮৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর বায়ুম-লের ওজোনস্তর ক্ষয়ের জন্য দায়ী দ্রব্যগুলোর ব্যবহার নিষিদ্ধ বা সীমিত করার জন্য ভিয়েনা কনভেনশনের আওতায় ওজনস্তর ধ্বংসকারী পদার্থের ওপর মন্ট্রিল প্রটোকল গৃহীত হয়। ১৯৯৪ সালে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ ১৬ সেপ্টেম্বরকে আন্তর্জাতিক ওজোনস্তর সুরক্ষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

শান্তি দিবস : ২১ সেপ্টেম্বর; বিশ্ব শান্তি দিবস বা আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস জাতিসংঘ কর্তৃক প্রস্তাবিত একটি আন্তর্জাতিকভাবে পালিত দিন, যা এর সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত বিশ্বের সকল দেশ ও সংগঠন কর্তৃক যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে পালিত হয়ে থাকে। পৃথিবী থেকে যুদ্ধ, হিংসা, আগ্নেয়াস্ত্র প্রয়োগের মতো ঘটনা মুছে ফেলতেই প্রতি বছর ২১ সেপ্টেম্বর বিশ্বব্যাপী এই দিবসটি পালন করা হয়ে থাকে। ১৯৮২ সালে সম্মিলিত জাতিপুঞ্জ প্রথমবার আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস পালন করেছিল।

নৌ দিবস : ১৮ সেপ্টেম্বর; যানজট দূষণ ও জ্বালানি ব্যয় কমাতে ইউরোপে ১৯৭০ খ্রিস্টাব্দ থেকে দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। এখন দিবসটি বিশ্বজননী মর্যাদা পেয়েছে।

মীনা দিবস : ২৪ সেপ্টেম্বর; ১৯৯১ খ্রিস্টাব্দ থেকে ইউনিসেফের উদ্যোগে শুরু হলেও ১৯৯৮ খ্রিস্টাব্দে দক্ষিণ এশীয় সহযোগিতা-সংগঠন সার্কের উদ্যোগে প্রতি বছর ২৪ সেপ্টেম্বরকে মীনা দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এই দিবসটি উপলক্ষে সার্কভুক্ত দেশগুলোতে শিশুদের জন্য এবং তাদের ভবিষ্যৎ উন্নতির লক্ষ্যে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে।

হার্ট দিবস : ২৬ সেপ্টেম্বর; ২৯ সেপ্টেম্বর বিশ্ব হার্ট দিবস। বিশ্বজুড়ে হৃদরোগ বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য দিবসটি পালিত হয়ে থাকে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে প্রতিবছর দুই লাখ ৭৭ হাজার মানুষ হৃদরোগে মারা যান, যার ৪ দশমিক ৪১ শতাংশের জন্য দায়ী ট্রান্সফ্যাট। যেসব কারণে হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ে তার মধ্যে ট্রান্সফ্যাট অন্যতম।

পর্যটন দিবস : ২৭ সেপ্টেম্বর; ২৭ সেপ্টেম্বর সারা বিশ্বব্যাপী বিশ্ব পর্যটন দিবস পালিত হয়ে থাকে। জাতিসংঘের অধীনস্থ বিশ্ব পর্যটন সংস্থার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ১৯৮০ সাল থেকে সব সদস্য দেশে এটি পালিত হয়ে আসছে।

দিবসটির প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ও পর্যটন কেন্দ্রের সঙ্গে সেতুবন্ধন গড়ে তোলা। এছাড়াও পর্যটনের ভূমিকা সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধিসহ সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক উপযোগিতাকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া।

নদী দিবস : সেপ্টেম্বর মাসের চতুর্থ রোববার; ১৯৮০ সাল থেকে প্রতিবছর সেপ্টেম্বর মাসের শেষ রোববার বিশ্ব নদী দিবস হিসেবে পালন করতে শুরু করে কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়া ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি। ১৯৮০ সালে কানাডার খ্যাতনামা নদীবিষয়ক আইনজীবী মার্ক অ্যাঞ্জেলো দিনটি ‘নদী দিবস’ হিসেবে পালনের উদ্যোগ নিয়েছিলেন।

জলাতঙ্ক দিবস : ২৮ সেপ্টেম্বর; প্রতি বছর ২৮ সেপ্টেম্বর বিশ্বব্যাপী বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবস পালিত হয়। অ-লাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘গ্লোবাল এলায়েন্স ফর রেবিজ কন্ট্রোল’ তাদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের দফতর থেকে এ দিবস পরিচালনায় প্রধান সমন্বয়ের ভূমিকা পালন করে। ‘রেবিজ’ বা ‘জলাতঙ্ক’ হচ্ছে ভাইরাস গঠিত একটি রোগ, যা সাধারণত কুকুর, শেয়াল, বাদুর প্রভৃতি উষ্ণ রক্তের প্রাণীদের মধ্যে দেখা যায়।

আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস : ২৮ সেপ্টেম্বর; ইউনেস্কোর সাধারণ সম্মেলনে স্বীকৃতি পাওয়ার পর থেকে প্রতিবছর ২৮ শে সেপ্টেম্বর আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস পালিত হয়ে থাকে।

হৃদয় দিবস (World Heart Day) : ২৯ সেপ্টেম্বর; বিশ্ব হার্ট দিবস (World Heart Day)। প্রতি বছর, ২৯ সেপ্টেম্বর বিশ্ব হার্ট দিবস পালিত হয়। স্ট্রোক এবং কার্ডিওভাসকুলার রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য এই দিনটি পালিত হয়ে থাকে।

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

0 Comments

Leave a Reply

Avatar placeholder

Your email address will not be published. Required fields are marked *