ই-পেপার

SITE UNDER CONSTRUCTION
বাংলাদেশ পুলিশের মুখপত্র
অব্যাহত প্রকাশনার ৬৩ বছর

স্বাধীনতার জন্য বাঙালির লড়াই দীর্ঘকালের। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন সেই মহান পথপ্রদর্শক, যিনি বাঙালি জাতিকে অভীষ্ট লক্ষ্যের দিকে নিয়ে যেতে পেরেছিলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সেই নেতা, যিনি বাঙালির চোখে স্বাধীনতার স্বপ্ন এঁকে দিয়েছিলেন। স্বপ্নপূরণে মরণপণ সংগ্রামে উদ্বুদ্ধ করেছিলেন। তাঁর রাজনৈতিক জীবনের লক্ষও ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতা। ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। বজ্রকণ্ঠের সেই আহ্বান ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’, বাঙালি জাতিকে নতুন পথের দিশা দেখিয়েছিল।

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের কালরাতে পাকিস্তানি সৈন্যরা গণহত্যা শুরু করলে ২৬ মার্চের সূচনালগ্নে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। মুক্তিযুদ্ধের ডাক দেন। হানাদার বাহিনীর সদস্যরা বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করে পাকিস্তানের কারাগারে নিয়ে যায়। মুক্তিযুদ্ধের নয় মাস তাঁকে বন্দী রাখা হয় নির্জন কারাগারে। প্রহসনের বিচারে বঙ্গবন্ধুকে ফাঁসির আদেশও দেওয়া হয়। বাঙালি জাতি মরণপণ যুদ্ধ করে এক সাগর রক্তের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জন করে।

১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করলেও স্বাধীনতার ঘোষক, বাঙালি জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা বঙ্গবন্ধু তখনো পাকিস্তানে কারাবন্দি। গোটা জাতি বঙ্গবন্ধুর জীবনের নিরাপত্তার ব্যাপারে উৎকণ্ঠিত, তাঁর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের প্রতীক্ষায় অধীর। বিশ্ব নেতারাও বঙ্গবন্ধুর মুক্তির দাবিতে সোচ্চার হয়ে ওঠেন। অবশেষে বাহাত্তর সালের ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু দেশে ফিরে আসেন। যুদ্ধোত্তর বাংলাদেশে জীবিত বঙ্গবন্ধুর দেশে ফেরা নানাভাবে তাৎপর্যপূর্ণ। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন তাই স্বাধীনতার আনন্দকে পরিপূর্ণ করে তোলে। স্বজন হারানো বাঙালি জাতি ফিরে পায় আত্মবিশ্বাস। কারণ বঙ্গবন্ধু ছিলেন বাঙালির আশা ও আকাঙ্খার প্রতীক।

বঙ্গবন্ধু আজ আমাদের মাঝে নেই। কিন্তু তাঁর নীতি ও আদর্শ আজও আমাদের এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা জোগায়। তাঁর আদর্শ বাস্তবায়নের ভেতর দিয়েই তাঁকে শ্রদ্ধা জানাতে পারি আমরা। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষণ গণনা শুরু হচ্ছে আজকের দিন থেকে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এবং বাংলাদেশ একাত্ম হয়ে আছে এক সূত্রে। যত দিন বাংলাদেশ থাকবে সেই অনন্তকাল পর্যন্ত শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করা হবে বঙ্গবন্ধুর নাম। তাঁর জন্মশতবর্ষে আমাদের অঙ্গীকার হোক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলা।

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

0 Comments

Leave a Reply

Avatar placeholder

Your email address will not be published. Required fields are marked *