ই-পেপার

SITE UNDER CONSTRUCTION
বাংলাদেশ পুলিশের মুখপত্র
অব্যাহত প্রকাশনার ৬৩ বছর

সম্পাদকীয় : জয়তু শেখ হাসিনা

গোপালগঞ্জের মধুমতি নদী বিধৌত টুঙ্গিপাড়ায় ১৯৪৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জন্মগ্রহণ করেন। স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছার জ্যেষ্ঠ সন্তান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি তিনি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নের আলোকবর্তিকা হাতে শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় : জাতীয় শোক দিবস

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে নৃশংস হত্যাকান্ডের শিকার হন বাংলাদেশের স্থপতি, বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এদিন জাতির পিতাকে হত্যা করে শুধুমাত্র রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করাই মূল উদ্দেশ্য ছিল না। মূলত: সেদিন বঙ্গবন্ধু এবং বাঙালিত্বকে হত্যা করাই ছিল ঘাতকদের লক্ষ্য । ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা ইতিহাসে প্রথম

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় : সহস্র অভিবাদন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

পদ্মা। প্রমত্তা পদ্মা! কতো নামেই না পদ্মাকে ডেকেছে এ দেশের মানুষ। হোয়াংহো-কে যেমন এক সময় চীনের দুঃখ বলা হতো; তেমনি পদ্মারও আরেক নাম কীর্তিনাশা। পদ্মা হচ্ছে বিশ্বের প্রমত্তা নদীগুলোর অন্যতম। পদ্মা শুধু খড়স্রাতাই নয়-এর চরিত্র বলা যায় আনপ্রেডিকটেবল। কখনো পাড় ভাঙ্গে। কখনো গতিপথ বদলে ফেলে। নদীগর্ভে বিলিন হয় শত শত

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় : ছয় দফা : বাঙালি জাতির মুক্তি সনদ

বাঙালি জাতির মুক্তি সংগ্রামের ইতিহাসে গৌরবোজ্জ্বল সংগ্রামী একটি দিন ৭ জুন। ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস। ১৯৬৬ সালের ৭ জুন থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ ছয় দফা দাবির পক্ষে দেশব্যাপী তীব্র গণআন্দোলনের সূচনা হয়। ছয় দফার মধ্য দিয়েই বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন স্বাধীনতা সংগ্রামে রূপ

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়- উৎসবের আনন্দ হোক সবার

ঈদুল ফিতর। সব ভেদাভেদ ভুলে একে অপরকে বুকে জড়ানোর দিন। পবিত্র রমজান শুধুমাত্র ইন্দ্রিয়ের কৃচ্ছ্বসাধনা নয়, আত্মিক বিশুদ্ধতা অর্জনেরও পথ দেখিয়ে দেয়। এক মাসের রোজার অবসানে তাই ঈদুল ফিতরের উৎসব কেবল ইন্দ্রিয়তৃপ্তির উৎসব নয়, আত্মার বিশুদ্ধতা নিয়ে জীবনকে নতুন করে সাজানোর অঙ্গীকারেরও উৎসব। পুরো রমজান মাস আমরা যে সংযমের অনুশীলন

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়- জাতীয় ঐক্যের প্রতীক পয়লা বৈশাখ

পয়লা বৈশাখ। বাঙালির নববর্ষ। যা একান্তই আমাদের জাতিসত্তার অংশ। বাংলা নববর্ষের প্রধান বৈশিষ্ট্যই হলো অসাম্প্রদায়িক চেতনা। আমাদের দেশে প্রচলিত অন্যান্য বর্ষপঞ্জীর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে ধর্মীয় ঐতিহ্য। কিন্তু বাংলা নববর্ষ ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে সকলের উৎসব। এককালে খাজনা আদায়ের সুবিধার্থে এ সনের প্রচলন হলেও কাল পরিক্রমায় বাংলা সন আমাদের অর্থনীতি ও সংস্কৃতিতে যুক্ত

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়- মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস

১৯৭০-এর সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে জয়লাভ করা সত্ত্বেও বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাছে পাকিস্তানি সামরিক জান্তা ক্ষমতা হস্তান্তর না করে পাকিস্তানি সেনারা গণহত্যা শুরু করে। সেনা অভিযানের শুরুতেই হানাদার বাহিনী বঙ্গবন্ধুকে তাঁর ধানমন্ডির বাসভবন থেকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের আগে ২৬ মার্চ প্রথম প্রহরে বঙ্গবন্ধু

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় – সর্বস্তরে বাংলাভাষা প্রচলনে বাধা কোথায়

মহান ২১ ফেব্রুয়ারি। শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। মাতৃভাষার সম্মান ও মর্যাদা রক্ষায় ১৯৫২ সালের এইদিনে সালাম, বরকত, রফিক, জব্বার প্রমুখ ঢাকার রাজপথে জীবন উৎসর্গ করেছিলেন। ভাষা শহীদদের এই আত্মত্যাগের কারণেই বাংলা রাষ্ট্রীয় ভাষার মর্যাদা লাভ করে। অন্যদিকে ভাষার জন্য জীবন দেয়ার বিরল ইতিহাস রচনার সুবাদে ২১ ফেব্রুয়ারি এখন

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়- বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন

১০ জানুয়ারি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। নয় মাসব্যাপী রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জনের পাশাপাশি বিশ্ব নেতৃবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর মুক্তির দাবিতে সোচ্চার হলে, পাকিস্তানি বর্বর শাসকগোষ্ঠী বাধ্য হয় তাঁকে সসম্মানে মুক্তি দিতে। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানি হানাদাররা বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে তাঁর ধানমন্ডির

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়- মহান বিজয় দিবস

ধনধান্যে পুষ্পে ভরা বাংলাদেশের ইতিহাস মূলতঃ জীবন সংগ্রামেরই বাস্তবতা। এ দেশের সম্পদ লুণ্ঠনে বিদেশি লুটেরা বারবার চেষ্টা চালিয়েছে। একপর্যায়ে বাঙালি তার স্বাধীনতা হারায় ইংরেজ বণিকদের হাতে। বাঙালি মুসলমানদের অগ্রণী ভূমিকায় ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ শাসনের অবসান ঘটিয়ে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠিত হলেও; শুরুতেই ষড়যন্ত্র, শোষণ ও নির্যাতনের শিকার হয় বাঙালীরা। নতুন রাষ্ট্রের কর্তৃত্ব

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়- শোকাবহ জেলহত্যা দিবস

জেলহত্যা দিবস ইতিহাসের পাতায় একটি মর্মান্তিক হত্যাকান্ড। ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে ঢুকে সেনাবাহিনীর কয়েকজন বিপথগামী সদস্য এ নৃশংস হত্যাকা- ঘটিয়েছিল। সভ্য দুনিয়ায় এ ধরনের ঘটনার নজির নেই। সেদিন নিষ্ঠুর হত্যাকান্ডের শিকার হন বাংলাদেশের স্বাধিকার আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালনকারী বঙ্গবন্ধুর আজীবন সহচর চার জাতীয় নেতা। বঙ্গবন্ধু

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় : সেই দিয়েছে সকল শূন্য করে

‘সবচেয়ে যে শেষে এসেছিল সেই গিয়েছে সবার আগে সরে ছো৭ যে জন ছিল রে সবচেয়ে সেই দিয়েছে সকল শূন্য করে’ কবি সত্যেন্দুনাথ দত্তের ছিন্ন মুকুল কবিতার ভাবার্থ যেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ সন্তান শেখ রাসেল এর জীবনে মূর্ত হয়ে উঠেছে। ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর যে ছোট্ট শিশুটি

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় : শুভ জন্মদিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা

প্রায় তিন দশক ধরে আওয়ামী লীগকে নেতৃত্ব দিয়ে যাওয়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫ তম জন্মদিন ২৮ সেপ্টেম্বর। ১৯৪৭ সালের এই দিনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় তিনি জন্মেছিলেন। মধুমতি নদী, বাঘিয়ার বিল আর বর্নির বাঁওড়ের জলকল্লোলস্নাত পরিবেশে শৈশব কেটেছে তাঁর। মাটি আর মৃত্তিকাসংলগ্ন মানুষের মধ্যে বেড়ে উঠেছেন তিনি। কোমল মাটির মতো মানুষটিকে

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়

কবি নির্মুলেন্দু গুণের ‘সেই রাত্রির কল্পকাহিনী’-তে এভাবেই উঠে এসেছে বাঙালির হৃদয়ভাঙা শোকগাথা। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়, যিনি তাঁর সারাটি জীবন উৎসর্গ করেছিলেন বাঙালির স্বাধিকারের জন্য, বাঙালির মুক্তির জন্য। ১৫ আগস্টের কালরাতে তাঁকেই জীবন দিতে হয়েছিল কিছু

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

মুজিব জন্মশতবর্ষের অঙ্গিকার

মহান স্বাধীনতা দিবস। বাঙালি জাতির ইতিহাসে সবচেয়ে গৌরবময় দিন। ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চের প্রথম প্রহরে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। তারও আগে ৭ই মার্চের ভাষণে প্রস্তুত জাতি মুহূর্তমাত্র বিলম্ব না করে ঝাঁপিয়ে পড়ে শত্রু সেনাদের প্রতিরোধে। সেই রাতেই রাজারবাগ, পিলখানায় অবস্থানরত পুলিশ

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সর্বস্তরে বাংলাভাষা চালু হোক

বাঙালির আত্মপরিচয় ও স্বকীয়তাবোধ মিলেমিশে একাকার হয়ে যাওয়ার উৎস মহান একুশ। ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি ‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’ শ্লোগান দিতে দিতে রফিক, সফিক, জব্বাররা বুলেটের সামনে বুক পেতে দিয়েছে। বুকের তাজা রক্তে আদায় করেছে মাতৃভাষার অধিকার। ১৯৪৭ সালের দেশভাগের পর বাংলা ও বাঙালির প্রতি যে অন্যায় ও বৈষম্যমূলক আচরণ শুরু

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়-জানুয়ারি ২০২১ : করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ

করোনা অতিমারীতে মৃত্যু, শোক আর সঙ্কটের সময় পেরিয়ে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ। ২৭ জানুয়ারি ২০২১ গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি করোনা ভ্যাকসিন দেওয়ার আনুষ্ঠানিকতার উদ্বোধন করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আজ ঐতিহাসিক দিন। কেননা, অনেক দেশ এখনো ভ্যাকসিন পায়নি। সেখানে অর্থনৈতিক সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও বাংলাদেশে

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় জুন ২০২০ : করোনাজয়ীদের অভিবাদন

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঠিক চার মাস পেরিয়ে এসেছি আমরা। প্রযুক্তির কল্যাণে সারা দেশের তো বটেই, গোটা পৃথিবীর অভিজ্ঞতা আমাদের সামনে প্রতি মুহূর্তে উঠে আসছে। নানা ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে মানুষ উপলব্ধি করছে যে, কোভিড-১৯ এমন একটি অসুখ তার বিরুদ্ধে কারও একার লড়াই যথেষ্ট নয়। করোনার বিরুদ্ধে যোদ্ধা আসলে সবাই। করোনা এমন

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় মে ২০২০ : করোনাকে ভয় নয়, জয় করতে হবে

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আশঙ্কা প্রকাশ করেছে করোনা সংকট দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে। প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। বাড়ছে মৃত্যু। স্বাস্থ্যখাত নিয়ে যারা কাজ করেন তারা দিশেহারা। চিকিৎসা বিজ্ঞানীরাও কোন সুখবর দিতে পারছে না। তাই আসন্ন কঠিন সময় মোকাবেলায় আমাদের সবাইকে সমন্বিত ও সর্বাত্মক প্রস্তুতি নেওয়ার বিকল্প নেই। এমনিতেই গত চার মাসে করোনায়

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় এপ্রিল ২০২০ : পুলিশ এখন জনতার

কোভিড-১৯ মহামারির আকস্মিক আক্রমনে পুরো পৃথিবী বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বাদ যায়নি বাংলাদেশও। কোভিড-১৯ এর ভয়াল থাবা মানুষকে  ভীত সন্ত্রস্ত করে তুলেছে। থমকে গেছে মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা। সারাক্ষণ মানুষকে তাড়িত করে ফিরছে মৃত্যু ভয়। লকডাউনে মানুষ হয়ে পড়েছে ঘরবন্দী। এমনি সময়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

মার্চ ২০২০ সম্পাদকীয় : মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস বাঙালি জাতির ইতিহাসে রক্তের অক্ষরে  লেখা একটি জ্বলজ্বলে দিন। তাছাড়া এবার ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর স্মরণে দিবসটি জাতীয় জীবনে আলাদা বৈশিষ্ট্যের দাবী রাখে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের লক্ষে জাতীয় পর্যায়ে বছরব্যাপী বিভিন্ন বর্ণাঢ্য কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়। ইউনেসকো সারা বিশ্বে বঙ্গবন্ধুর

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয় ফেব্রুয়ারি-২০২০ : মহান একুশে স্বাধীনতার সূতিকাগার

একুশে ফেব্রুয়ারি বাঙালি জাতির জীবনে এক গৌরবান্বিত দিন। মাতৃভাষায় কথা বলার অধিকার আদায়ে ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারিতে রক্ত দিয়েছিলেন সালাম, বরকত, রফিক, শফিকসহ আরও অনেকেই। ফলে বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতিদানে পাকিস্তানি শাসকরা বাধ্য হয়েছিল। মূলত: ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বিকশিত হয় বাঙালির স্বাধিকার চেতনা। একুশের শহীদদের রক্তদান বাঙালি জাতিকে

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)

সম্পাদকীয়- জানুয়ারি ২০২০ : বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন

স্বাধীনতার জন্য বাঙালির লড়াই দীর্ঘকালের। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন সেই মহান পথপ্রদর্শক, যিনি বাঙালি জাতিকে অভীষ্ট লক্ষ্যের দিকে নিয়ে যেতে পেরেছিলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সেই নেতা, যিনি বাঙালির চোখে স্বাধীনতার স্বপ্ন এঁকে দিয়েছিলেন। স্বপ্নপূরণে মরণপণ সংগ্রামে উদ্বুদ্ধ করেছিলেন। তাঁর রাজনৈতিক জীবনের লক্ষও ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতা। ১৯৭১

ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন :)